মুসলমানদের হাতে অস্ত্র তুলে নিতে মানা

সম্ভবত মুসলমানদের হাতে অস্ত্র তুলে নিতে মানা । কারন এরা শান্তিপ্রিয় জাতি । যেহেতু এই তকমাটা আগে থেকেই লেগে আছে তাই হাতে অস্ত্র তুলে নিলে জঙ্গি হতে সময় লাগবে না । আমাদের জন্য মাইর খাওয়া ফরজ । কারন আমরা মুসলমান । ধর্ম আমাদের ইসলাম । মানবাধিকার আমাদের জন্য নয় । পাশের বাসার হিন্দুকে আগুনে পুড়িয়ে মারা হলে মানবাধিকার দৌড়ে আসে । বৌদ্ধ মন্দির পুড়িয়ে দিলে মানবাধিকার লাফায় লাফায় চলে আসে । সংখ্যালঘু নির্যাতন বলে কথা !!! হিন্দু মারো ,বৌদ্ধ মারো ,মানবাধিকারের দরকার আছে । জবাব দিহিতার দরকার আছে । মুসলমান মারলে দরকার নাই । কারন এই জাতটা অতি শান্তিপ্রিয় । অশান্ত পৃথিবীতে শান্তিপ্রিয় মানুষের বেঁচে থাকার অধিকার নাই । মানবাধিকার তো পরের জিনিশ । আমেরিকা একটা দেশ এবং ওবামা একটা প্রেসিডেন্ট । উনি ইসরাইলকে যুদ্ধ বন্ধে সাহায্য করতে চেয়েছেন । মারা খাচ্ছে ফিলিস্তিনের মানুষগুলা এইটা উনি দেখছেন না । আমি খুশি হয়েছি । সব সময় সব কিছু দেখার দরকার নাই । এতে হৃদয় চক্ষু খুলে যেতে পারে । গত ৩ দিন ইহুদিরা অপারেশন প্রটেক্টিভ এজ নামে যা চালিয়েছে তাতে \”\”মাত্র\”\” ৮৮ জন ফিলিস্তিনি মারা গেছে । বিশ্বের আর ১০ টা শিশু থেকে একটা ফিলিস্তিনি শিশুর অধিকার কম । বোমার আঘাতে পা উড়ে গেলেও দেখার কেউ নাই । আবার ক্ষুধার যন্ত্রণায় মারা গেলেও বলার কেউ নাই । মানবাধিকারের বলি হচ্ছে এরাই । হলিউডে আমার প্রিয় নায়িকা হচ্ছেন জোলি । এই কিউট মহিলা নাকি আফগান মেয়েদের শিক্ষার জন্য সেখানে স্কুল খুলেছেন । আরো কত কিছু করেছেন সেটা হিসাব কষে বলতে হবে । পাকিস্তানের কিঊট বালিকা মালালা গুলি খেলে সেটা গিয়ে একেবারে জাতিসংঘের মাথায় লাগে । আর একটা ফিলিস্তিনি মারা গেলে সেই খবর কেউ রাখে না । পরমানু বোমা শুধু আমেরিকার কাছে থাকলেই সেটা শান্তির কাজে আসে । ইরান বানাতে চাইলে তারা হয় জঙ্গিবাদি মুসলিম দেশ । এই পোস্ট যখন পড়ছেন তখন ফিলিস্তিনের কতো শিশু কতো শিশু তাদের মা বাবাকে হারাচ্ছে সেটার হিসাব কেউ রাখে না । রাখবেও না । কতো মা তার সন্তানকে হারাচ্ছে সেই হিসাবও কেউ রাখবে না । কতো স্ত্রি তার স্বামীকে হারিয়ে বিধবা হচ্ছে প্রতি সেকেন্ডে সেকেন্ডে সেইটাও কেউ জানবে না । শুধু জানবে অমুক জায়গায় অভিযান চলছে …জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অমুকের অবস্থান …ব্লা …ব্লা …ব্লা …ব্যাস কেল্লাফতে … আচ্ছা ,এরাও তো মানুষ …তাই না ?? এদের জন্য দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে কখনো মানব বন্ধন করেছেন ?? কিংবা এই নির্যাতনের বিরুদ্ধে সংহতি প্রকাশ করেছেন ?? ব্রাজিল হেরে গেলে গলায় দড়ি নিয়েছে । এই যে মুসলমানরা ক্রমাগতভাবে নির্যাতিত এইটার জন্য কেউ কখনো দড়ি নিয়েছে ?? শুনেছেন কখনো ?? একটু ভেবে দেখবেন ।

Advertisements

Ainul Islam munna. student.living in Chittagong, Bangladesh. fan of technology, photography, and music.interested in cricket and travel.

Posted in সমালোচনা

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

ব্লগ বিভাগ
ব্লগ সংকলন
%d bloggers like this: