মুছলিম মরলে জগতের মঙ্গল, পক্ষান্তরে ইহুদিরা জ্ঞানে-বিজ্ঞানে সকলের সেরা, তাঁদের বেঁচে থাকাটা জগতে সবচাইতে জরুরী

ইহুদিদের চাইতে ‘সভ্য’, এই জগতে আর কি কেও আছে? ‘জ্ঞানে বিজ্ঞানে কর্মে’ তাঁরাই জগতের সকলের চাইতে সেরা –এই কথাটা জানিয়া রাখিও তোমরা! ‘মুছলিম উম্মাহ্’ সভ্য পৃথিবীর আবর্জনা, আর এই আবর্জনা পরিষ্কার করার মিশনে নেমেছেন ইহুদিরা। নিধন করা হোক মুছলিম উম্মাহ্, পাপের ভারমুক্ত হোক্ সভ্য দুনিয়া! জগতের জঞ্জাল এই মুছলিম উম্মাহ্’দের নিধন করে, ইহুদিদের নিকট আরেকবার ঋণী করে দিলে -সভ্য পৃথিবীটাকে। আমার আর্শীবাদ ও শুভদৃষ্টি রইল, হে ইহুদি -তোমাদের সাথে; ‘হিন্দু-ইহুদি সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় ও অবিচ্ছেদ্য হবে’ –সেই কথাটাই বলি বারে বারে। বিজয়ী ভব!
গোটা মুছলিম জাতটাই একটা মহা\’মেড অর্থ্যাৎ মহা উন্মাদ! কোর\’আনে ইহুদিদের বিরুদ্ধে তথা অমুছলিমদের বিরুদ্ধে জিহাদ ঘোষনা সহ চরম সাম্প্রদায়িকতার কথা বলা হয়েছে অথচ ইহুদিরা এই জিহাদের পাল্টা জবাব দিতে গেলে, মুছলিম শুয়রের বাচ্চারা কান্নাকাটি শুরু করে। কি কইতাম এই অমানুষের বাচ্চাগুলার রে! এইগুলারে মাইরা ফালাইলেও সমস্যা, আবার না মারলে বিরাট ক্ষতি।
গত কয়েক মাসে প্রায় আড়াই লাখেরও বেশী মুসলমান তাদের নিজেদের মুসলমান ভাইদের হাতে সিরিয়ায় জবাই হল, তার খবর পাত্তা পায়না কিন্তু যদি একটা সন্ত্রাস (মুছলিম) ইহুদীদের হাতে হত্যা হয়, সঙ্গে সঙ্গে আমাদের মুছলিম ভাইয়েরা চিৎকার করে উঠে। এর সমাধান কি?
মুছলিম-ইহুদিদের যুদ্ধবিরতিতে উভয় পক্ষকে রাজি করানো কখনও সম্ভব হবে না, সকল আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টাই ব্যর্থ হবে; যে পর্যন্ত না মুছলিমদের প্রধান গ্রন্থ পবিত্র কোর\’আন -এর \’সংস্কার বা নিষ্কর্ষণ\’ সম্ভব হবে! কোর\’আনে ইহুদিদের হত্যা করা সহ তাঁদের উপর কঠোর সাম্প্রদায়িক আচরণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে । কিন্তু কোর\’আনের \’সংস্কার বা নিষ্কার্ষণ\’ কখনও সম্ভব কি? কখনও সম্ভব না। যদি কোর\’আনের সংস্কার অসম্ভাব্য, তাহলে ইহুদিদের দোষারোপ কেন করা হয়!
হামাসের দাবি, তারা ১৫ জন ইসরাইলি সেনাকে খতম করেছে! ১৫ জন ইসরাইলি সেনা শহীদ হয়েছেন, এই ১৫জন ইসরাইলি সেনা হত্যার বদলা হিসাবে ১৫ কোটি মুছলিমের লাশ চাই! মুছলিম হইল সন্ত্রাস, মুছলিম মরলে জগতের মঙ্গল। পক্ষান্তরে ইহুদিরা জ্ঞানে-বিজ্ঞানে সকলের সেরা, তাঁদের বেঁচে থাকাটা জগতে সবচাইতে জরুরী।
গাজার নারী ও শিশুদের ভারতে পাঠিয়ে দেওয়া হোক। হিন্দুর চরণতলে তারা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সুখে থাকবে। তাছাড়া ভারতে কন্যা সন্তানের সংখ্যা অনেক কম। প্রতি ৩ জন ছেলে সন্তানের বিপক্ষে মাত্র ১ (এক) জন কন্যা সন্তান জন্ম দেয় -হিন্দুরা! তাই ইরান, ইরাক, আফাগন, পাকিস্তান, সিরিয়া, ফিলিস্তিন ইত্যাদি প্রতিটা দারুল-ইসলামের নারীদের ভারতে পাঠানোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হোক!

Advertisements

Ainul Islam munna. student.living in Chittagong, Bangladesh. fan of technology, photography, and music.interested in cricket and travel.

Posted in সমালোচনা

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

ব্লগ বিভাগ
ব্লগ সংকলন
%d bloggers like this: